কমরেড বারীণ দত্তের ২৭তম মৃত্যুবার্ষিকী

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
একতা প্রতিবেদক : বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক কমরেড বারীণ দত্তের ২৭তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে। পাকিস্তান আমলে কমিউনিস্ট পার্টি নিষিদ্ধ হলে তিনি আব্দুস সালাম নাম নিয়ে কাজ করেন। পরে তিনি রাজনীতিতে এই নামেই পরিচিত ছিলেন। কমরেড বারীণ দত্ত ১৯১১ সালে ২০ ডিসেম্বর হবিগঞ্জের লাখাইয়ে জন্মগ্রহণ করেন। জাতীয়তাবদী সশস্ত্র আন্দোলনের মধ্য দিয়ে তিনি রাজনীতিতে প্রবেশ করেন। ত্রিশের দশকের মধ্যভাগে তিনি মার্কসবাদ-লেলিনবাদ মতাদর্শ গ্রহণ করে তৎকালীন ভারতের কমিউনিস্ট পার্টিতে যোগ দেন। তিনি কমিউনিস্ট পার্টি সিলেট জেলার সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি সিলেটের ‘নানকার কৃষক বিদ্রোহের’ অন্যতম প্রধান সংগঠক ছিলেন। তিনি ১৯৬৮ সালে পূর্ব পাকিস্তানের কমিউনিস্ট পার্টির প্রথম কংগ্রেসে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ১৯৭১ সালের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। পার্টির দ্বিতীয়, তৃতীয়, চতুর্থ কংগ্রেসে তিনি সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য নির্বাচিত হন। কৃষক নেতা কমরেড বারীণ দত্ত বাংলাদেশ কৃষক সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ১৯৩৩ সালে প্রথম কারাবরণ করেন। ব্রিটিশ ও পাকিস্তান আমলে তিনি এক দশকের বেশি সময় কারাগারে কাটান। ১৯৯৩ সালে পার্টির অভ্যন্তরে সৃষ্ট মতাদর্শিক বিতর্কের সময় তিনি মার্কসবাদ-লেলিনবাদের পক্ষে অবস্থান গ্রহণ করেন। তাঁর নেতৃত্বে পার্টির তৎকালীন বয়োজ্যেষ্ঠ নেতৃবৃন্দ বিলোপবাদীদের বিপক্ষে অবস্থান গ্রহণ করার জন্য বিবৃতির মাধ্যমে পার্টির সদস্যদের আহ্বান জানান। কমরেড বারীণ দত্ত ১৯৯৩ সালে ২০ অক্টোবর ৮২ বছর বয়সে ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেন। ২৭ তম মৃত্যুবার্ষিকীতে এবার পুরানা পল্টনের মুক্তিভবনে কমরেড বারীণ দত্তের স্মরণে তার প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..