জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে আগ্রাসী এরদোয়ান

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email

একতা বিদেশ ডেস্ক : ২২ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে বক্তব্য প্রদানের সময় আগ্রাসী ভূমিকায় দেখা যায় তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ানকে। এরদোয়ানের বক্তব্যে ভারতের কাশ্মীর এবং ইসরাইলের অবৈধ বসতি স্থাপনের বিষয়টি উঠে আসে। বক্তব্যে আরব জোটের দেশগুলোর ইসরাইলের সাথে করা চুক্তি নিয়ে এক হাত নেন এরদোয়ান। এছাড়া সাধারণ পরিষদে কাশ্মীর নিয়ে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট বলেছেন, দক্ষিণ এশিয়ার স্থিতিশীলতা ও শান্তির মূল চাবিকাঠি কাশ্মীর। কিন্তু কাশ্মীর এখনো একটি জ্বলন্ত ইস্যু। আলোচনার মাধ্যমে কাশ্মীর সমস্যার সমাধান জরুরি। জাতিসংঘের প্রস্তাব ও কাশ্মীরের মানুষের প্রত্যাশা অনুযায়ী আলোচনার মাধ্যমে এ সমস্যার সমাধানের পক্ষে তাঁরা। ইসরাইল নিয়ে কড়া সমালোচনার পর সাধারণ পরিষদের অধিবেশন ছেড়ে চলে যেতে দেখা যায় ইসরাইলী প্রতিনিধিদের। আর জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে কাশ্মীর নিয়ে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ানের মন্তব্যের কড়া সমালোচনা করেছে ভারত। ভারত বলেছে, জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে তুর্কি প্রেসিডেন্ট যে মন্তব্য করেছেন, তা ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপের শামিল। এটি পুরোপুরি অগ্রহণযোগ্য। জাতিসংঘে নিযুক্ত ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি টি এস তিরুমূর্তি বলেছেন, তুরস্ককে অন্য দেশের সার্বভৌমত্বের প্রতি সম্মান জানানো শিখতে হবে। তাদের নীতিতে এর প্রতিফলন থাকা দরকার। এ বছর নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশন হচ্ছে বেশির ভাগই ভার্চুয়াল। সেখানে আগে থেকে বিশ্ব নেতাদের রেকর্ড করা বক্তব্য পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। সাধারণত প্রতি বছরের এই অধিবেশনে ভূ-রাজনৈতিক কোনো ইস্যু সামনে থাকে। কিন্তু এবার যেহেতু সশরীরে সবাই উপস্থিত নেই, তাই এমন কোনো গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু এবার অনুপস্থিত। এবারের অধিবেশনে প্রতিটি দেশের প্রতিনিধিত্ব করছেন মাত্র একজন প্রতিনিধি।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..